জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস, বিএনপির দিনব্যাপী কর্মসূচি

 ২০২০-১১-০৭ ১০:২১:৫১   বিভাগ: এক্সক্লুসিভ

নাফ বার্তা ডেস্ক :

৭ নভেম্বর, দিনটিকে ঐতিহাসিক জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস হিসেবে পালন করে আসছে বিএনপি।

বিএনপির দাবি, ১৯৭৫ সালের এ দিনে ক্যান্টনমেন্টের বন্দিদশা থেকে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে মুক্ত করে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দেন সিপাহী-জনতা।

সিপাহী-জনতার বিপ্লবের মাধ্যমে আধিপত্যবাদ, একনায়কতন্ত্র, একদলীয় শাসন, জনজীবনের বিশৃঙ্খলাসহ তখনকার বিরাজমান নৈরাজ্যের অবসান ঘটে। একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ থেকে দেশ একটি সুশৃঙ্খল পরিবেশে ফিরে আসে। জাতীয় ইতিহাসের এ দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে থাকে বিএনপি। এ উপলক্ষে দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পৃথক বাণী দিয়েছেন। বিএনপি ও তাদের অনুসারী সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
বিএনপির দপ্তরের চলতি দায়িত্বে থাকা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত বাণীতে বলা হয়, ৭ নভেম্বর জাতীয় জীবনের এক ঐতিহাসিক অবিস্মরণীয় দিন। ১৯৭৫ সালের এ দিনে সৈনিক-জনতা রাজপথে নেমে এসেছিল জাতীয় স্বাধীনতা সুরক্ষা ও হারানো গণতন্ত্র পুনরুজ্জীবনের দৃঢ় প্রত্যয় বুকে নিয়ে। তাই ৭ নভেম্বরের ঐতিহাসিক বিপ্লব অত্যন্ত তাৎপর্যমণ্ডিত। দেশমাতৃকার চরম সংকটকালে ১৯৭৫ এর ৩ নভেম্বর কুচক্রিরা জিয়াউর রহমানকে সপরিবারে ক্যান্টনমেন্টে বন্দি করে। এ অরাজক পরিস্থিতিতে ৭ নভেম্বর দেশপ্রেমিক সৈনিক এবং জনতার ঢলে রাজপথে এক অনন্য সংহতির স্ফুরণ ঘটে এবং জিয়াউর রহমান মুক্ত হন।

দিবসটি উপলক্ষে এক বাণীতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, মহান জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আমি দেশবাসী সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। তাদের সুখ শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করি। ’৭৫-এর ৭ নভেম্বর সৈনিক-জনতার ঐতিহাসিক বিপ্লবে আমাদের মাতৃভূমি প্রভাবমুক্ত হয়ে স্বাধীন অস্তিত্ব লাভ করে এবং বহুদলীয় গণতন্ত্রের পথচলা নিশ্চিত হয়। স্বদেশবাসীর জাগরিত দৈশিক চেতনায় পরাজিত হয় আধিপত্যকামী শক্তির অশুভ ইচ্ছা। ১৯৭৫ সালের এ দিনে স্বাধীনতার চেতনায় আধিপত্যবাদী শক্তির নীল নকশা প্রতিহত করেন এদেশের বীর সৈনিক ও জনতা। সম্মিলিত প্রয়াসে জনগণ নতুন প্রত্যয়ে জেগে ওঠে। ৭ নভেম্বর বিপ্লবের সফলতার সিঁড়ি বেয়েই আমরা বহুদলীয় গণতন্ত্র এবং অর্থনৈতিক মুক্তির পথ পেয়েছি।

বিএনপির কর্মসূচি: ঐতিহাসিক এ দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে:

শনিবার (৭ নভেম্বর) সকাল ৬টায় নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারাদেশে দলীয় কার্যালয়গুলোতে দলীয় প্রতাকা উত্তোলন করা হয়েছে।

সকাল ১১টায় প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে বিএনপির পক্ষ থেকে দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন এবং দোয়া করবেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে সীমিত আকারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুপুর ১২টায় বিএনপি-ঢাকা মহানগর দক্ষিণ, ১২টা ১৫ মিনিটে বিএনপি-ঢাকা মহানগর উত্তর এবং ১২টা ৩০ মিনিটে অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো জিয়ার সমাধিতে ফুল দেবে ও সুরা ফাতেহা পাঠ করে দোয়া করবে। এদিন বিকেল ৩টায় জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

একইভাবে দেশব্যাপী জেলা, মহানগর ও উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে নিজ নিজ সুবিধানুযায়ী যথাযোগ্য মর্যাদায় ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভাসহ অন্যান্য কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে।

দেশব্যাপী সিপাহী জনতার অভ্যুত্থান দিবস পালন করবে জাসদ

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ বঙ্গবন্ধু ও চার জাতীয় নেতা হত্যা, অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল ও সংবিধান লঙ্ঘন, ব্যক্তি ও গোষ্ঠী স্বার্থে সেনাবাহিনীকে ব্যবহার, হত্যা-ক্যু-ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এবং ঔপনিবেশিক রাষ্ট্রকাঠামোর অবসানের লক্ষ্যে সংঘটিত ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বরের ঐতিহাসিক মহান সিপাহী-জনতার অভ্যুত্থান স্মরণে শনিবার (৭ নভেম্বর) বরাবরের মতই দেশব্যাপী সিপাহী-জনতার অভ্যুত্থান দিবস পালন করবে।

এদিনে জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরি কমিটি সকাল ১১টায় কর্নেল তাহের মিলনায়তনে ঐতিহাসিক সিপাহী-জনতার অভ্যুত্থানের মহানায়ক, মহান দেশপ্রেমিক, মহান মুক্তিযুদ্ধে সেক্টর কমান্ডার, মহান বিপ্লবী জাসদ নেতা শহীদ কর্নেল তাহের বীর উত্তমের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান এবং আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। দলের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য শিরীন আখতার জাসদের সব জেলা-উপজেলা কমিটিকে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অনুরূপ কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

নাফ বার্তা/ আমিন চৌধুরী…..


আর্কাইভ
November 2020
S S M T W T F
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  

ফেইসবুকে আমরা