বিদায় বেলায় সাকিবের প্রতি ভালবাসা

 ২০২০-০৩-০৭ ১২:৩২:৪৪   বিভাগ: এক্সক্লুসিভ

নাফ বার্তা স্পোর্টস :

দেশসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে তার ক্যারিয়ারের শুরুর সময় থেকেই দেখছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। ২০০৯-১০ সালে সাকিবের অধিনায়কত্বে যেমন খেলেছেন মাশরাফি, তেমনি মাশরাফির অধিনায়কত্বে প্রায় ছয় বছর খেলেছেন সাকিব। ২০১৪ সালের পর থেকে অধিনায়ক মাশরাফির অন্যতম বড় অস্ত্র সাকিব আল হাসানই।

তাই আজ (শুক্রবার) নিজের অধিনায়কত্বের শেষ ম্যাচে সাকিবের জন্য বিশেষ ধন্যবাদ রেখেছেন মাশরাফি। জানিয়েছেন সাকিবের মতো একজন খেলোয়াড় থাকায় অধিনায়কত্ব অনেক সহজ হয়েছে। নিষিদ্ধ থাকার কারণে অধিনায়ক মাশরাফির শেষ ম্যাচটি খেলতে পারেননি সাকিব। তবে তাকে ভোলেননি মাশরাফি।

ম্যাচ শেষে দলের সতীর্থদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা আমার জন্য অনেক বড় সম্মানের বিষয়। আমার দলের খেলোয়াড়রা সত্যিই অসাধারণ ছিল। দলের জন্য ওরা সবসময় সেরাটা দিয়েছে। প্রত্যেককে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই। বিশেষ ধন্যবাদ সাকিবের জন্য। ও আজ এখানে থাকলে আরও ভালো লাগত।’

পরে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে মাশরাফি বলেন, ‘এ সময়টা আসলে অনেক কঠিন। তবে আমার সত্যিই অনেক ভালো লাগছে দেখে যে ৩-০ সিরিজ জেতায় ছেলেরা অনেক খুশি। আমি ওদের কাছ থেকে, কোচদের কাছ থেকে যে সমর্থন-সহযোগিতাটা পেয়েছি, তার কোনো তুলনা নেই। আশা করবো, পরে যেই অধিনায়ক হোক সে দলকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে।’

এর আগে গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক বার্তায় সাকিব জানান দিয়েছেন, অধিনায়ক মাশরাফির প্রতি তার ভালোবাসার কথা। সাকিব মনে করেন, অধিনায়কত্ব ছাড়লেও প্রিয় বড় ভাই হিসেবে সবসময় বাংলাদেশ দলেই থাকবেন মাশরাফি।

সাকিব লিখেছেন, ‘সত্যিকারের নেতা এবং যোদ্ধা বলতে যা বোঝায় আপনি আমাদের কাছে তার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন সবসময়। বহু প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও, আপনি উৎসাহ জুগিয়েছেন আমাদের। শিখিয়েছেন নিজেদের প্রতি বিশ্বাস রাখতে। আপনার থেকেই শিখেছি গৌরব আর সম্মানের সাথে দেশের জার্সি পরে কীভাবে মাঠে লড়তে হয়। নিঃসন্দেহে আমরা দারুণ কিছু সময় কাটিয়েছি মাঠে, কাটাবো সামনের দিনগুলোতেও।’

‘নিজের উদ্যমে যেভাবে আমাদের প্রেরণা দিয়েছেন আর প্রতিটা মুহূর্ত পাশে থেকে দল হিসেবে সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করার ব্যাপারটা ভুলবো না কখনোই। বিনয় আর সম্মানের সাথে টিম টাইগার্স আর প্রিয় জাতীয় পতাকাকে বিশ্বের বুকে উঁচিয়ে ধরার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। হয়তো আমাদের নেতৃত্বের দায়িত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন কিন্তু আমাদের সবার প্রিয় ‘মাশরাফি ভাই’ হয়ে সারাটাজীবন থাকবেন আমাদেরই মাঝে। সবসময়ই যেন আমাদের জন্য আপনার সেরাটা দিতে পারেন এই শুভকামনা জানাচ্ছি।’

অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে তার ক্যারিয়ারের শুরুর সময় থেকেই দেখছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। ২০০৯-১০ সালে সাকিবের অধিনায়কত্বে যেমন খেলেছেন মাশরাফি, তেমনি মাশরাফির অধিনায়কত্বে প্রায় ছয় বছর খেলেছেন সাকিব। ২০১৪ সালের পর থেকে অধিনায়ক মাশরাফির অন্যতম বড় অস্ত্র সাকিব আল হাসানই।

তাই আজ (শুক্রবার) নিজের অধিনায়কত্বের শেষ ম্যাচে সাকিবের জন্য বিশেষ ধন্যবাদ রেখেছেন মাশরাফি। জানিয়েছেন সাকিবের মতো একজন খেলোয়াড় থাকায় অধিনায়কত্ব অনেক সহজ হয়েছে। নিষিদ্ধ থাকার কারণে অধিনায়ক মাশরাফির শেষ ম্যাচটি খেলতে পারেননি সাকিব। তবে তাকে ভোলেননি মাশরাফি।

ম্যাচ শেষে দলের সতীর্থদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা আমার জন্য অনেক বড় সম্মানের বিষয়। আমার দলের খেলোয়াড়রা সত্যিই অসাধারণ ছিল। দলের জন্য ওরা সবসময় সেরাটা দিয়েছে। প্রত্যেককে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই। বিশেষ ধন্যবাদ সাকিবের জন্য। ও আজ এখানে থাকলে আরও ভালো লাগত।’

পরে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে মাশরাফি বলেন, ‘এ সময়টা আসলে অনেক কঠিন। তবে আমার সত্যিই অনেক ভালো লাগছে দেখে যে ৩-০ সিরিজ জেতায় ছেলেরা অনেক খুশি। আমি ওদের কাছ থেকে, কোচদের কাছ থেকে যে সমর্থন-সহযোগিতাটা পেয়েছি, তার কোনো তুলনা নেই। আশা করবো, পরে যেই অধিনায়ক হোক সে দলকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে।’

এর আগে গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক বার্তায় সাকিব জানান দিয়েছেন, অধিনায়ক মাশরাফির প্রতি তার ভালোবাসার কথা। সাকিব মনে করেন, অধিনায়কত্ব ছাড়লেও প্রিয় বড় ভাই হিসেবে সবসময় বাংলাদেশ দলেই থাকবেন মাশরাফি।

সাকিব লিখেছেন, ‘সত্যিকারের নেতা এবং যোদ্ধা বলতে যা বোঝায় আপনি আমাদের কাছে তার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন সবসময়। বহু প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও, আপনি উৎসাহ জুগিয়েছেন আমাদের। শিখিয়েছেন নিজেদের প্রতি বিশ্বাস রাখতে। আপনার থেকেই শিখেছি গৌরব আর সম্মানের সাথে দেশের জার্সি পরে কীভাবে মাঠে লড়তে হয়। নিঃসন্দেহে আমরা দারুণ কিছু সময় কাটিয়েছি মাঠে, কাটাবো সামনের দিনগুলোতেও।’

‘নিজের উদ্যমে যেভাবে আমাদের প্রেরণা দিয়েছেন আর প্রতিটা মুহূর্ত পাশে থেকে দল হিসেবে সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করার ব্যাপারটা ভুলবো না কখনোই। বিনয় আর সম্মানের সাথে টিম টাইগার্স আর প্রিয় জাতীয় পতাকাকে বিশ্বের বুকে উঁচিয়ে ধরার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। হয়তো আমাদের নেতৃত্বের দায়িত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন কিন্তু আমাদের সবার প্রিয় ‘মাশরাফি ভাই’ হয়ে সারাটাজীবন থাকবেন আমাদেরই মাঝে। সবসময়ই যেন আমাদের জন্য আপনার সেরাটা দিতে পারেন এই শুভকামনা জানাচ্ছি।

নাফ বার্তা/এসএ


আর্কাইভ
March 2020
S S M T W T F
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
29  

ফেইসবুকে আমরা